ধারাবাহিক গল্প

দুষ্টু বরের রোমান্টিক অত্যাচার  পর্ব ১

কলমে সিয়াম আহমেদ 

হাসি :: এই একদম আমার কাছে আসবেন না
হাসিব:: তুমি আমার বিয়ে করা বউ তোমার কাছে আসবো না তো কার কাছে আসবো
হাসি:: না. আমি এই বিয়ে মানি না. আপনি একটা রাগী
লোক কথায় কথায় শুধু রাগ করেন. আপনি খুব বাজে
হাসিব:: উল্টা পাল্টা কাজ করলে তো বকা খাবে. তুমি আমার কথা শোনো না কেন?
হাসি:: আমি কেন আপনার কথা শুনতে যাব
হাসিব:: এখন তো শুনতেই হবে আমার লক্ষী বউ
হাসি:: বললেই হল
হাসিব:: হুম বললেই হল. এখন আর আমি সময় নষ্ট করতে চাই না। এখন আমি আমার বউকে অনেক আদর করবো
হাসি:: না
কে শোনে কার কথা হাসিব নিজের ঠোঁট জোড়া হাসির ঠোঁটে মিলিয়ে দিল তারপর সারারাত দুইজনে আনন্দে মেতে উঠলো
পরিচয়
মিস্টার হাসিব বাংলাদেশের টপ বিজনেসম্যান দের মধ্যে বেশ নামকরা একজন বিজনেসম্যান পুরো নাম সিয়াম আহমেদ হাসিব. আর হাসি তার বিয়ে করা বউ দেখতে খুব মায়াবতী।প্রথম দেখায় যে কেউ হাসির প্রেমে পড়ে যেতে পারে হাসিবের বেলায়ও তার কোনো পরিবর্তন ঘটেনি. তাইতো হাসিব তাকে প্রেম করে বিয়ে করেছিল. হাসিব ও কিন্তু কোন দিক থেকে কম নয় দেখতে যেমন হ্যান্ডসাম তেমনি সুন্দর
সকালবেলা
হাসি:: লুচ্চা বেটা আমার ইজ্জত কেড়ে নিলো রে মানুষকে আমি মুখ দেখাবো কি করে
হাসিব:: তোমার স্বামী তো করেছে অন্য কেউ তো আর করেনি
হাসি:: অন্যকেও নিলেও তো ভালো হতো
হাসিব:: কি বললি তুই? তোর উপর শুধু আমারই অধিকার আছে. তোর দিকে কেউ চোখ তুলে তাকালে ও আমি তার চোখ তুলে ফেলবো
হাসিবের চোখ থেকে আগুন বের হচ্ছে যা দেখে হাসি একদম শেষ! হাসিব হাসিকে বিছানায় ধাক্কা মেরে ফেলে ফ্রেশ হতে চলে যায়. যাওয়ার আগে বলে গেল
হাসিব:: রেডি হয়ে নাও আজ একসাথে অফিসে যাব
হাসিব:: কি হলো রেডি হচ্ছো না কেন নাকি আমি রেডি করে দেবো
হাসি:: না আমি রেডি হচ্ছি
হাসিব আর হাসি দুজনে রেডি হয়ে একসাথে অফিসের দিকে রওনা দিল. হাসি আজকে শাড়ি পড়ে এসেছে শাড়িতে হাসিকে অসম্ভব সুন্দর লাগছে. অফিসের
সবাই কেমন করে জানি হাসির দিকে তাকিয়ে আছে.
যেটা দেখে হাসিবের একদমই সহ্য হচ্ছে না
হাসিব:: সবাই এমন হা করে কী দেখছেন, জান সবাই সবার নিজের নিজের কাজে যান. আর সবাই শুনে রাখুন ও হচ্ছে সিয়াম আহমেদ হাসিবের ওয়াইফ. তাই কাউকে যেন ওর দিকে চোখ তুলে তাকাতে না দেখি. মনে থাকবে তো সবার
সবাইতো হাসিবের কথা শুনে অবাক,হাসিব স্যার বিয়ে করলো অথচ আমরা কেউই জানতেই পারলাম না,সবাই এক সুরে বলল জি স্যার মনে থাকবে
হাসিব:: হাসি এক কাপ কফি নিয়ে আমার কেবিনে আসো
হাসি:: পারবোনা……
হাসিবের রাগের চোখ দেখে হাসি পুরো কথাটা বলতে পারল না
হাসি:: আমি বলেছি পারব তো পারবই,আমি আনতেছি. সব সময় আমাকে এরকম করেন কেন
হাসিব:: যাও
এদিকে হাসি হাসিবের কফি বানাতে বানাতে হাসিবের চৌদ্দগুষ্টি উদ্ধার করছে (হুম এক কাপ কফি বানাও কেন রে আমি কি তোর চাকর নাকি ওয়েট কর কফি বানিয়ে একদম তোর মাথায় ঢেলে দেবো উগান্ডা থেকে উঠে এসে এসেছিস মনে হয়. তোকে আবার উগান্ডায় পাঠিয়ে দেবো দেখিস.
তুই জানিস আমি কে? তুই যদি হাসিব হোস তাহলে আমিও মিসেস হাসিব. তোকে আজ এমন কফি খাওয়াবো না জীবনে আর কফির নাম নিবিনা)
হাসির কফি বানানো শেষ হলে কফি নিয়ে হাসিবের কেবিনের দিকে যায়
হাসি:: এই নিন আপনার কপি
হাসিব:: মাত্র একটা কফি বানাতে এত সময় লাগে
হাসিব কফি মাত্র কয়েক চুমুক খেয়ে অবস্থা টাইট. বমি করতে করতে শেষ
হাসিব:: এটা ক ক কফি বানাইলা..?
হাসি:: কেন সাদ হয়নি, আপনার জন্য শুধু আপনার জন্য কত কষ্ট করে কফিটা বানিয়ে নিয়ে আসলাম. কি কি দিয়েছি জানেন মরিচ লবণ হলুদ আটা ময়দা আরো অনেক কিছু
এদিকে তো হাসিব রেগে ফায়ার. হাসি আর কিছু বলতে পারলোনা হাসিবের চোখ দেখে হাসি ভয়ে কাঁপতে শুরু করল কারণ হাসিবের চোখ ভয়ঙ্কর ভাবে লাল হয়ে গেছে.হাসিব একপা দুইপা করে হাসির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে
হাসি:: এইভাবে আমার দিকে এগিয়ে আসছেন কেন
হাসি পিছনে সরতে সরতে একসময় দেওয়ালে তার পিঠ ঠেকে যায় হাসিব হাসির কাছে এসে তার দুই সাইডে দুই হাত রাখল
হাসিব:: কফির ভিতর সব ছিল শুধু মিষ্টি টা ছিল না তাই এখন মিষ্টি টা খেতে হবে
হাসি:: দেখুন মিষ্টি খান আর যাই খান কিন্তু আমাকে যেতে দিন
হাসি:: কিছু বলার আগেই হাসিব তার ঠোটজোড়া হাসির ঠোঁটের সাথে মিলিয়ে দিল
হাসিব পাগলের মত হাসির ঠোটে কিস করছে
হাসি আর কিছু আর হাসি আপ্রাণ চেষ্টা করছে হাসিবের থেকে ছোটার আপ্রাণ চেষ্টা করছে কিন্তু পারছেনা. খামচি আর ঘুসি দিয়েও কোন লাভ হল কিন্তু হাসিব একসময় শান্ত হয়ে যায় 5 মিনিট পরেই হাসি হাসি কে ছেড়ে হাঁপাতে লাগলো সাথে হাসিও পাচ্ছে
হাসিব:: প্রতিদিন মিষ্টি ছাড়া কফি বানালে সমস্যা নাই এভাবে মিষ্টি খেয়ে নেব
হাসি লজ্জা পেয়ে দিল এক দৌড় নিজের কেবিনের দিকে
হাসি:: পাইছে কি যখন তখন আদর দিবে মনে হচ্ছে এখনই ওর নামে একটা কেইস করে দিই আমার ঠোট কি তোর সম্পদ নাকি যে যখন ইচ্ছা কিস করবে।
হাসি নিজের কেবিনে বসে সিসিটিভি ফুটেজের হাসিকে দেখছে আর মুচকি মুচকি হাসছে
হাসিব:: হাসিকে নিজের কেবিনে আসতে বলে
হাসি:: না আসতে চাইলেও তাকে বাধ্য হয়ে আসতে হয়
হাসি:: কি জন্য ডাকছেন
হাসিব:: খাবার প্রস্তুত করো লাঞ্চ করব
হাসি:: আমি আপনার সাথে লাঞ্চ করব না
হাসিব::তোমাকে কে করতে বলেছে. আমার জন্য প্রস্তুত করো
হাসি:: আমি পারব না নিজের খাবার নিজের জন্য প্রস্তুত করেন
হাসিব:: তুমি কিন্তু আমার সকাল কার কথা ভুলে গেছো খাবার প্রস্তুত করবে নাকি আবার কিস করা শুরু করবো
হাসি:: না না মনে আছে মনে আছে, দিচ্ছি দিচ্ছি খাবার প্রস্তুত করে দিচ্ছে
হাসি খাবার রেডি করল
হাসি:: আপনার খাবার প্রস্তুত খেয়ে নিন ভালো থাকবেন আমি যাই
হাসিব:: যাই মানে,এর খাবার বেড়ে দিলে কি হয় নাকি খাইয়ে দেবে কে
হাসি:: কিই, নিজে নিজেই খান আমি খাইয়ে দিতে পারবো না
হাসিব:: সত্যিই পারবা নাতো
হাসি:: হুম
হাসিব:: ওকে তাহলে তুমি যেহেতু কিস খেতে চাচ্ছো তাহলে তো আমাকে দিতেই হবে
হাসিব চেয়ার থেকে উঠে হাসির দিকে একপা দুইপা করতে করতে এগিয়ে আসে
পর্ব সমাপ্ত 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button